ব্রেকিং নিউজ

মেডিটেশন কেনো করবেন -চয়ন বড়ুয়া

মেডিটেশন:
মেডিটেশন হল মনের রূপান্তর যা আপনাকে নিয়ে যাবে সচেতনতার ভিন্ন এক স্তরে। আপনি শন্তি অনুভব করবেন, নিজের মাঝে অনুভব করবেন নিরবতা। একই সাথে আপনার মস্তিষ্ক হবে আরও সচেতন। নিরবে বসে আপনি ধ্যান করছেন মানে এই নয় যে আপনি পৃথিবী থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে আছেন। আপনি বরং আরও বেশী ঘনিষ্ট হচ্ছেন, আরও জানছেন, মনোযোগী হচ্ছেন।

একটা নির্দিষ্ট ধরণের মেডিটেশনের প্রাকটিস আপনাকে মস্তিষ্কের প্যাটার্ন এবং অভ্যাস শিখতে সাহায্য করবে। এভাবে আপনি আবিষ্কার করতে থাকবেন নিজের মাঝে সৃষ্টিশীল আপনাকে, হয়ে উঠবেন একজন পজিটিভ মানুষ। নিয়মিত ধ্যান আপনার ফোকাস করার ক্ষমতা বাড়াবে। আপনি এত গভীরে প্রবেশ করবেন যে মনে জড়ো হবে শান্তি এবং শক্তি। এই অভিজ্ঞতা আপনাকে দেবে নতুন জীবনবোধ।

কেন মেডিটেশন করবেন?
মেডিটেশন কোন ব্যায়াম নয়। এটি কোন প্রকার আধ্যাত্মিকতার চর্চাও নয়। মেডিটেশন হল নিজের সাথে নিজের বোঝাপড়া। নিয়মিত ধ্যানের প্রাকটিস আপনার মনে শান্তি আনার সাথে সাথে আরও অনেক উপকার করবে যা বদলে দেবে জীবনের গল্প। কিভাবে-

শারীরিক সুবিধা:
আমাদের শরীর তার সমস্ত অর্গান এবং কোষগুলোকে কাজে লাগিয়ে তাকে কর্মোক্ষম রাখে। শরীরের কোন অংশ যদি ব্লক হয়ে যায় বা কাজ করা বন্ধ করে দেয় তখনি অন্যান্য অংশগুলো প্রভাবিত হয়। এটি একটি চক্রের মত। এই চক্রে গোলমাল হলেই আমরা অসুস্থ হয়ে পড়ি। কার্যকরি মেডিটেশনের চর্চা এই গোলমালের কারণগুলোকে ঠিক করে দেয় এবং নতুন করে ব্যালেন্স করে দেয় শরীরের সব অর্গান। তাই কুন্দনলিনীর শক্তি শুদ্ধকরণ প্রক্রিয়ায় নিরাময় যোগ্য নয় এমন রোগও নিরাময় হয়ে যায়।

মানসিক সুবিধা
মনকে প্রশান্ত করার মাধ্যমে মেডিটেশন আপনার আভ্যন্তরীন স্থিরতা বজায় রাখে। মনকে জাগতিক দুঃখবোধ থেকে দূরে রাখে। মেডিটেশন করার সময় নিজের প্রতি আমরা এত মনোযোগ দেই যে আমরা দেখতে পাই আমাদের আসল চেহারা, প্রকৃতির সত্যিকারের রূপ। এই রূপ আমাদের নিজেদের তৈরি জটিলতা, কলুষতা দ্বারা প্রভাবিত নয়। এই রূপ একেবারেই নিখাদ, নিরপেক্ষ সত্য। এভাবে আপনার মন অনুভব করতে পারে নিত্যদিনের ঝামালেগুলোই একমাত্র বাস্তব নয়।

আবেগ:
মেডিটেশন আমাদের হাতে তুলে দেয় নিজের উপরে সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ। আমরা আমাদের আবেগকে নিয়ন্ত্রণ করতে শিখে যাই নিয়মিত ধ্যানের মাধ্যমে। প্রচন্ড রেগে যাওয়া, প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করা, উদ্বিগ্ন হওয়া এসবই কমে আসে। কারণ আপনার মনে বিরাজ করে সান্তি। আপনি মানুষকে ক্ষমা করতে পারবেন আরও সহজে। আপনার নিজের মাঝে স্থিরতা জগতের প্রতি আপনার বিতৃষ্ণা কমিয়ে দেয়। আপনি ঘটনা নয়, তার কার্যকারণ বিশ্লষন করতে শুরু করেন। ফলে আগে যেই সমস্যাগুলোর কোন সমাধান নেই বলে মনে হত এখন সেই সমস্যাগুলো আপনি সমাধান করতে পারবেন। ধ্যান ফোকাস করার ক্ষমতা বাড়ায়। স্ট্রেস কমানোর সবচেয়ে কার্যকরি পথ হল এওই মেডিটেশন।

মেডিটেশন বিভিন্ন ধরণের হয়। আপনার কি চাই সেই অনুযায়ী নিজের কোর্সটি নির্বাচন করুন। প্রতিদিন একটি নির্দিষ্ট সময় নিজেকে দিন, শুধুই নিজেকে। ধ্যান করুন, নিজেকে ভালবাসুন, আবিষ্কার করুন আপনার মাঝের শক্তি।

সম্মন্ধে SNEHASHIS Priya Barua

এটা ও দেখতে পারেন

খুব সংক্ষেপে মহাসতিপট্ঠান সহায়িকা

একূশটি উপায়ে অরহ্ত্ত্ব লাভের উপায় তথা কর্মস্থান সংযূক্ত গভীর অর্থসংযুক্ত মহাসতিপট্ঠান সূত্তI এখানে একুশটি উপায়ে …

Leave a Reply