ব্রেকিং নিউজ

ভিক্ষু প্রশিক্ষন ও মুড়িঘন্ট পর্ব এক✍️✍️✍️

🕵️‍♀️🕵️‍♀️🕵️‍♀️🕵️‍♀️ – বাংলাদেশি ভিক্ষু সংঘে একতা নাই, সম্প্রীতি নাই – যে কোন দেশে না থাকা অস্বাভাবিক নয়- বুদ্ধের সময় ও হয়েছে বলে আমরা জানি। তবে আজকে যে কারন টি বলবো তা হচ্ছে দেখা হয় নাই চক্ষু মেলিয়া ঘর হইতে এক পা ফেলিয়া একটি শিষের উপর একটি শিশির বিন্দু।

💐💐💐কেমন? আমাদের দেশে যেহেতু তেমন একটা ভালো ভিক্ষু প্রশিক্ষন কেন্দ্র গড়ে উঠেনি আর উঠলে ও বেশির ভাগ ভিক্ষু সুযোগ পেলেই চলে যান বিভিন্ন দেশে এবং অনেকে ফিরে ও আসেন। যখন তারা ফিরে আসেন তখন তারা বিভিন্ন বৌদ্ধ আচার অনুষ্ঠান কিভাবে সম্পাদিত হবে তাতে ভিন্ন মত পোষন করেন। যিনি শ্রীলংকায় প্রশিক্ষন প্রাপ্ত তিনি শ্রীলংকান ধারায় প্রভাবিত হয়ে চিন্তা করেন। অন্যজন যিনি বার্মায় প্রশিক্ষনপ্রাপ্ত তিনি চিন্তা করেন বার্মিজ ষ্টাইলে। আবার যিনি থাইল্যান্ডে প্রশিক্ষন প্রাপ্ত তিনি স্বভাবতই এদের সাথে বিরাগভাজন হন এবং বলে উঠেন এটা থাইল্যান্ডি মতে নয়। অন্যজন বলে উঠেন বৌদ্ধ ধর্মের উৎপত্তি যেহেতু ভারতে অতএব ভারতীয় ধারায় ই হোক। আরও একটা আছে যেটাকে বলে মুড়ি ঘন্ট যেমন – মনে করুন কেউ আমারিকা এসেছেন এবং আমেরিকান ষ্টাইলে প্রভাবিত বলে মনে করছেন কিন্তু বিষয় টা যদি এমন হয় যে তিনি ভালো ইংলিশ বলেন না এবং বুঝেন মুড়িঘন্ট মার্কা তাহলে কি তিনি আসলে প্রকৃত ইংরেজী কালচারে ধাতস্থ হতে পারবেন – উনার সাথে তো আসলে প্রকৃত ইংরেজদের উঠা বসার সুযোগি হবার কথা নয় আর হলে ও তিনি যেহেতু ইংরেজীতে পারদর্শী নন তবে তিনি যা বুঝবেন তা হবে মূড়িঘন্ট মার্কা আর সেটা প্রভাব ফেলবে আর এক রকম – মূড়িঘন্ট মার্কা – নয় কী?

🙏🙏🙏এ ভাবে বাংলাদেশি বৌদ্ধরা কি সঠিক পথে কিংবা বাংলাদেশী বৌদ্ধ হতে পারবে কোন দিন? ভেবে দেখবেন আপনি কি বৌদ্ধ হতে চান? না কি বার্মিজ কিংবা শ্রীলংকান কিংবা ভারতীয় কিংবা থাই বৌদ্ধ হতে চান?

❤️❤️❤️এ প্রসংগে ভেবে দেখবেন – বাংলাদেশি ভিক্ষু প্রশিক্ষন কেন্দ্র গড়ে উঠার গুরুত্ব কত অপরিসীম। ভেবে দেখবেন বিষয়গুলো মূল ত্রিপিটকের সাথে অর্থ কথা ও সঙ্গত রেফারেন্স থেকে কোন এক বিশেষ দেশের কালচারের গন্ডী ছাড়িয়ে, বিদেশি প্রভাব মুক্ত হয়ে, স্ব অবস্থান থেকে যা হতে পারে অনেক বেশি যথার্থ।

☸️☸️☸️সঙ্গত কারনে আমার এবার প্রবারনা হয়নি এবং কঠিন চীবর দান ও হয়নি এখন অবধি আর আপনারা যারা বলছেন হয়েছে তারা অনেকে মুসাবাদা শীল টির পরিহানি করেছেন কিন্তু কেন তা কোন এক আগামী পর্বে বলার অবকাশ এলে বলবো। জগতের সকল প্রানী সুখী হউক। ধর্মদান নাকি মহাদান তবে পোষ্টটি শেয়ার করে তার ভাগিদার হউন।🙏🙏🙏

পর্ব দুই এর লিঙ্ক https://www.facebook.com/photo.php?fbid=10156891473534302&set=a.10151410980809302&type=3&theater

সম্মন্ধে SNEHASHIS Priya Barua

এটা ও দেখতে পারেন

মেডিটেশান এবং আপনার ব্রেইন

Leave a Reply