ব্রেকিং নিউজ

অন্তিম যাত্রায় শায়িত সংঘবন্ধু অজিতানন্দ মহাস্থবির

ঐতিহ্যবাহী বাংলাদেশ সংঘরাজ ভিক্ষু মহাসভা (দি সুপ্রিম সংঘ কাউন্সিল অব বাংলাদেশ)এর সভাপতি, রাংগুনীয়া উপজেলা সদর কেন্দ্রীয় ইছাখালী আশোকরাম বিহারের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ,রাংগুনীয়া সংঘরাজ ভিক্ষু সমিতির প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক /সভাপতি,রাংগুনীয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালেয়ের শিক্ষক সমিতির প্রাক্তন সভাপতি, বাংলাদেশ সংঘরাজ ভিক্ষু মহাসভার প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক, ইছাখালী ধর্মরত্ন অনাথ আশ্রমের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক, বিনয় বিশারদ, তত্ত্ববারিধি,রাজগুরু ধর্মরত্ন মহাস্থবিরের প্রাণশিষ্য,সংঘের স্বাধীকার রক্ষার অগ্রদ্রুত,শাসন স্বর্দ্ধমের অন্যতম কান্ডারী,ধর্মসেনাপতি সংঘবন্ধু প্রয়াত পন্ডিত অজিতনন্দ মহাস্থবির মহোদয়।

আগামী ২৮ এ ফেব্রুয়ারী ও ১লা মার্চ বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার অনাড়ন্বর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে অন্তিম শয়নে শায়িত করা হবে।

পৃথিবীতে মহান ব্যক্তির আবির্ভাব বড়ই দুর্লভ। মহান ব্যক্তিরা যেখানে সেখানে জম্মগ্রহন করেন না। যেখানে এই মহান ব্যক্তি জম্মগ্রহন করেন সেই দেশ ও জাতি সুখ ও সমৃদ্ধি লাভ করেন। বিংশ শতকে যে কয়জন সংঘমনীষা বাংলাদেশ ও স্বধর্মের উন্নয়নে অগ্রনী ভূমিকা পালন করেন তাঁদের মধ্যে প্রয়াত অজিতানন্দ মহাস্থবির অন্যতম। এই আবাল্য ব্রক্ষচারী আত্নহিত ও আত্মমুক্তির পাশাপাশি বহুজনের হিত ও কল্যাণ সাধনে আত্মনিবেদিত বিরল ভিক্ষু ব্যক্তিত্ব। কর্মজীবনে ভন্তের প্রতিটি ক্ষেত্র ছিল উজ্জ্বল ও বিশাল। এই মহাযোগীর স্বভাব ছিল শান্ত অথচ ভন্তের প্রত্যয় ছিল দৃঢ়। কথা ও কর্মের অপূর্ব সমন্বয় ভন্তের চরিত্রকে করেছে সুমহান। তিনি ছিলেন বেশ যুক্তিবাদী ও বিজ্ঞানমনষ্ক। তাইতো ভন্তের মধ্যে আমরা দেখেছি বৌদ্ধ কার্যকরন নির্ভরশীল সমাজচেতনা। বাস্তবতাকে সবসময় সামনে রেখে তিনি নিজের বিবেক যুক্তিবোধ দিয়েই সব কিছুর সমাধান খুঁজতে চাইতেন। ভান্তের চিন্তার মধ্যে আর ও পেয়েছি বৃহৎ এই জনগোষ্ঠীর সকল নিরুন্কুশ সুখ শান্তির প্রেরণা। তিঁনি ছিলেন কর্মে বিচক্ষন,অমিত সাহসী, প্রখর বুদ্ধিদীপ্ত ও গভীর দূরদৃষ্টি সম্পর্ন্ন।

আজকের এই দিনে পূজনীয় ভান্তের নির্বাণ সুখ কামনা করি।

পাদটীকা—–যেখানে আমিই আমার নই সেখানে আমার অর্থ ধন সম্পদ দিয়ে কি হবে? আমার কর্মই আমার জীবনের গতি নির্ধারন করবে। তাই সময় থাকতে আর এক মুহূত্ব ও সময় নষ্ট না করে সর্বদা কুশল কার্য সম্পাদন করুন। এটাই জীবনের একমাত্র মুক্তির পথ।

সম্মন্ধে Debapriya Barua

এটা ও দেখতে পারেন

আবার ও খেটে খাওয়া দিন মজুরদের পাশে ত্রিরত্ন সংঘেরর সদস্যরা।

আবার ও খেটে খাওয়া দিন মজুরদের পাশে দাঁড়ালো বৌদ্ধদের সুপরিচিত সংগঠন ত্রিরত্ন সংঘ।বিশ্ব মহামারি করোনা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *