ব্রেকিং নিউজ

রাউজান মহামুনিতে দুই দিন ব্যাপী কঠিন চীবর দানোৎসব সম্পন্ন

সংবাদ দাতা- গাজী জয়নাল আবেদীন
রাউজানের ঐতিহ্যবাহী মহামুনি
পাহাড়তলী গ্রামে মহামুনি আর্য্য সত্য
প্রজ্ঞা বিমুক্তি বিহারে দু’দিন ব্যাপী
দানোত্তম শুভ কঠিন চীবর দানানুষ্ঠান ও
ভদন্ত মঙ্গল মিত্র স্থবির বরনোৎসব যথাযোগ্য
ধর্মীয় মর্যদায় সম্পন্ন হয়েছে। ৩ ও ৪ নভেম্বর,
বৃহস্পতি ও শুক্রবার দু’দিন ব্যাপী এই
ধর্মসভায় বিহারটির প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক
প্রতিসম্ভিদাসহ ষড়াবিজ্ঞ অর্হংৎ, আর্য্য
শ্রাবক ভদন্ত শীলানন্দ স্থবির (ধূতাঙ্গ
ভান্তে) স্ব-শিষ্য’র উপস্থিতিতে অনুষ্ঠানে
সভাপতিত্ব করবেন মহামুনি গ্রামের মহানন্দ
সংঘরাজ বিহারের অধ্য উপ-সংঘরাজ ভদন্ত
ধর্ম প্রিয় মহাথেরো। প্রসূন মুৎসুদ্দীর
সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন
বিহারের সভাপতি অজল প্রিয় বড়ুয়া
সচিবের বক্তব্য প্রদান করেন মহামুনি এংলো
পালি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক
অঞ্জন বড়ুয়া ঝুনু। ধূতাঙ্গ ভান্তে কতৃক
প্রব্রজিত প্রায় ২৫০ জনের অধিক শ্রমন ও ভিক্ষু সংঘ
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।
বিরূপ আবহাওয়ার মাঝেও সকাল থেকে
সহস্রাধিক নারী-পুরুষ ভক্তের সমাবেশ ঘটে
এই ধর্ম সভায়। ধমীয় ও জাতীয় পতাকা
উত্তোলনের মাধ্যমে শুরু হওয়া সভায় পুজনীয়
ধূতাঙ্গ ভান্তে ভক্তদের নিয়ে বিশ্ব শান্তি
কামনায় প্রার্থনা করেন এবং ভক্তদের
দেশনা দেন। সভার মাধ্যমে নবনির্মিত
দেশনা হল দান, কল্পতরু দান, ভিক্ষু সংঘকে
কঠিন চীবর দান করেন। এছাড়াও পঞ্চশীল গ্রহন ও
বুদ্ধ পুজা উৎসর্গ, ভিক্ষু শ্রমন সংগের পিন্ড
চারন, কীর্তন সহযোগে প্রস্তুতকৃত চীবর নিয়ে
গ্রাম প্রদিণ, ভিক্ষু সংঘের আসন গ্রহণ ও বরণ,
স্থবির বরণ, অষ্টপরিষ্কারসহ সংঘদান, চীবর
উৎসর্গ ও পূণ্যানুমোদনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের
সমাপ্তি ঘটে।
ধূতাঙ্গ ভান্তে ভক্তদের দেশনায় বলেন, মানুষ
তার কর্ম ফলের মাধ্যমে স্বর্গ, নরক তৈরি
করে। মানব বা প্রাণীর কল্যানের মধ্যমে
প্রকৃত পূণ্য লাভ করা যায়। বৌদ্ধ ধর্ম ত্যাগের
ধর্ম, মানবতার ধর্ম।

সম্মন্ধে SNEHASHIS Priya Barua

এটা ও দেখতে পারেন

বাংলাদেশের ২য় বৃহত্তম দণ্ডায়মান বুদ্ধপ্রতিবিম্বের বুদ্ধাভিষেক ও একক সদ্ধর্মদেশনা অনুষ্ঠান…ত্রিরত্ন সংঘ।।

গত ২৮শে ফেব্রুয়ারি ২০২০ সাল রোজ শুক্রবার শুভ দিনে ভারত – বাংলা উপমহাদেশের সর্বজন নন্দিত …

Leave a Reply