ব্রেকিং নিউজ

বদ্ধু-ধর্ম-সংঘ কি!!!

লিখেছেন – সুমন রাজ,

প্রতিনিয়ত কম বেশী সবাই বুদ্ধ-ধর্ম -সংঘের কথা বলছি আমরা। আসলে আমরা সবাই কি জানি বুদ্ধ -ধর্ম -সংঘ কি?

#বুদ্ধঃ
বুদ্ধ অর্থ জ্ঞানী।সিদ্ধার্থ গৌতম জন্ম, জরা, দুঃখ ব্যাধি, কামনা, জন্ম রোধ, মোহ, অবিদ্যা সব কিছু কে জয় করে, ধ্বংস করে মুক্তির নির্বাণে মহা জ্ঞানে বুদ্ধত্ব লাভ করেছেন।তাই তিনিই জ্ঞানী। তিনিই বুদ্ধ।আর যারা বুদ্ধ কে মেনে চলে তারা জ্ঞানের অনুসারী,জ্ঞানের সন্ধানী।জ্ঞানের অনুসারী ও জ্ঞান সন্ধান করি বলে আমরা বৌদ্ধ।

#ধর্মঃ
ধর্ম হচ্ছে নিয়ম নীতি ও সুন্দর জীবন চলার রাস্তা।পরের সুখে সুখী হওয়া ও পরের দুঃখে ব্যতীত হওয়া হচ্ছে ধর্ম। সৎ জীবন যাপন, হিংসা, মিথ্যা দৃষ্টি পরিহার করে, শীল, সমাধি প্রজ্ঞার মাধ্যমে ধর্ম পালনে রাষ্ট, সমাজ, পরিবার, সুখী হয়।

#সংঘঃ
তথাগত বুদ্ধের জীবদ্দশা হতে মৈত্রী,করুণা,বিনয়ে থেকে বুদ্ধের প্রচারিত বাণী প্রচার করে আসছে তারা সংঘ।সংঘ -বুদ্ধ প্রতিষ্ঠিত উওরাধিকারী।সংঘ মানে ভিক্ষু সংঘ।

পৃথিবী জুড়ে আজ যুদ্ধ, হিংসা, বঞ্চনা,জীবনাশের দৌরাত্ন্য সব কিছুতে চলছে নিয়ন্ত্রন করার কর্ম। যত পাচ্ছে আরও চাইছে ভোগের কমতি নাই। তাই তো সৃষ্ঠি হচ্ছে নতুন নতুন সমস্যা,বাধছে যুদ্ধ । এই হানাহানি হিংসাময় জগতে বুদ্ধের মৈত্রী,সাম্য,অহিংসার বাণী কতটা অপরিহার্য লিখে শেষ করা যাবে না।
অহিংসা, হানাহানি বন্ধে ও জগতের সর্বজনের সুখ কামানায় নিতে হবে /মানতে হবে-
বুদ্ধং সরণং গচ্ছামি
ধর্মং সরণং গচ্ছামি
সংঘং সরণং গচ্ছামি।

সকল অনাচার বন্ধ হোক
জগতের সকল প্রাণী সুখী হোক।

সম্মন্ধে SNEHASHIS Priya Barua

এটা ও দেখতে পারেন

ঈশ্বরবাদে বিশ্বাসী নয় বৌদ্ধরা, -সুমন রাজ

বৌদ্ধরা ঈশ্বরবাদী নয়,নিজেই নিজের মুক্তিদাতা। ================================== সুমন রাজ জগত জুড়ে যত ধর্মের উৎপত্তি, সৃষ্টি হয়েছে …

Leave a Reply