ব্রেকিং নিউজ

কঠিন চীবর দান শুধু কি বাবুদের নাকি সবার? *** অভিজিত বড়ুয়া বিভু

buddha_jataka_nirvanaকঠিন চীবর দান শুধু কি বাবুদের নাকি
সবার? ****************************************** কঠিন চীবর দান মানে বাবুদের দান। এই ধারনা অতীত সময়ের। কিন্তু কেন? এই প্রশ্নের উত্তর দেয়ার মত স্পর্ধা নাই বা দেখালাম। তবে বাবু বলেন আর আবু বলেন আমরা সবাই এক। বৌদ্ধ জাতি। সবার অংশ গ্রহণ না থাকলে কোন সার্বজনীন মহৎ কাজ সফল হয় না। শুধু শুধু বাবুদের আক্রমণ করে লাভ কি। আমাদের বাবুরা বিভিন্ন অনুষ্ঠানে আর্থিক বা বিভিন্ন ব্যাপারে পরামর্শ না দিলে বিভিন্ন কাজে ব্যাঘাত ঘটে বৈ কি। এই সময়ের বাবুরা আগের চেয়ে অধিক সচেতন। বিহারের শ্রদ্ধেয় ভিক্ষু এবং সাধারন জনগনের মন বুঝে বৌদ্ধ সমাজকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবার চেষ্টা করে যাচ্ছে। উদাহরণ হিসেবে রাজধানী ঢাকার দুটি চীবর দানের কথা উল্লেখ না করলে নয়। প্রথমত,আশুলিয়া বোধিজ্ঞান ভাবনা কেন্দ্রের কথা বলি। ভাবনা কেন্দ্রে দানোত্তম শুভ কঠিন চীবর দানে ধর্ম দেশনা করেন অধ্যাপক ড. জ্ঞানরত্ন মহাথের। সভাপতিত্ব করেন ভদন্ত বসুমিত্র মহাথের মহোদয়। উক্ত দানানুষ্ঠানে শ্রদ্ধেয় জ্ঞানরত্ন ভান্তের একক ধর্ম দেশনা শুনে উপস্থিত উপাসক উপাসিকারা সন্তুষ্টি প্রকাশ করে। দ্বিতীয়ত, বাংলাদেশ বৌদ্ধ সমিতি -ঢাকা অঞ্চল কর্তৃক পরিচালিত প্রজ্ঞানন্দ বৌদ্ধ বিহারের কথা উল্লেখ করার মত। উক্ত বিহারে একক ধর্ম দেশনা করেন রাঙ্গামাটি রাজবন বিহারের শ্রীমৎ মেত্তাবংশ স্থবির। সেদিন শ্রদ্ধেয় ভান্তের চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ভাষার প্রাণবন্ত ধর্ম দেশনা সবার মন কেড়েছে। যা রাজধানীবাসী বৌদ্ধ জাতি অনেক দিন মনে রাখবে। এই দুই কঠিন চীবর দান এবং ধর্ম দেশনা দানকারী ভান্তেদের কথা উল্লেখ করার একমাত্র কারণ এই দুই দানে আমাদের বাবুরা কোনভাবে হস্তক্ষেপ বা প্রভাব কাটায়নি। শ্রদ্ধেয় ভান্তেদের ধর্ম দেশনা করার অনুকূল পরিবেশ তৈরী করে দিয়েছে। যা আমাদের আশাবাদী ও অনুপ্রাণিত করছে। আগামী ২৮ অক্টোবর যথাক্রমে ঢাকায় দুটি দানোত্তম কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠিত হবে। একটি বৌদ্ধ মহাবিহার উত্তরা, অন্যটা ইস্কাটনে বিয়াম ফাউন্ডেশন মিলনায়তনে। উল্লেখ্য যে উক্ত দানোত্তম শুভ কঠিন চীবর দানে পরম পূজ্য গুরুভন্তের একক ধর্মদেশনা দান করবেন। পরবর্তীতে কমলাপুর ধর্মরাজিক বৌদ্ধ বিহার, বাড্ডা আন্তর্জাতিক বৌদ্ধ বিহারে দানোত্তম শুভ কঠিন চীবর দান। আমরা আশা করব উল্লেখিত বৌদ্ধ বিহার সহ দেশের সকল বৌদ্ধ বিহারে আমাদের বাবুরা শ্রদ্ধেয় ভিক্ষুদের ধর্ম দেশনা দেয়ার ক্ষেত্রে দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখবে। এবং কঠিন চীবর দান মানে বাবুদের দান এই অতীত বদনাম ঘোচাতে সচেষ্ট হবে।

সম্মন্ধে vuato2

এটা ও দেখতে পারেন

পূজনিয় শরনংকর বনাম ডঃ হাছান মাহমুদ বা এরশাদ শিরোনামটা শতভাগ সঠিক নয়

(লেখাটি যে কোন কেউ ছাপাতে পারেন আমার অনুমতির প্রয়োজন নাই) পূজনিয় শরনংকর বনাম ডঃ হাছান …

Leave a Reply