ব্রেকিং নিউজ

থেরবাদী আর মহাযানবাদী বোকা :স্নেহাশীষ প্রিয় বড়ুয়া

bapy2

থেরবাদী আর মহাযানবাদী বোকা
স্নেহাশীষ প্রিয় বড়ুয়া
এক পুরুষ তার স্ত্রীর প্রতি ভীষনভাবে আসক্ত, অবিদ্যার কারনে তার স্ত্রীকে অসম্ভব রকম সন্দেহ করেন উপরন্তু তিনি ইংরেজি ভাষাটা ঠিক তেমনি বুঝতে পারেন না এমতাবস্থায় তিনি দেখলেন তার স্ত্রী কম্পিউটারে বসে চ্যাট করছেন এবং ইংরেজীতে একটা শব্দ তিনি বেশ বুঝতে পারলেন সেটা হচ্ছে LOVE বাদ বাকীটা আর ব্যাখা করার নিশ্চয়ই প্রয়োজন নেই। এ উদাহরন দিয়ে কি বোঝা গেল ??? বোকা হা করে তাকিয়ে রইলো জ্ঞান পাপীদের দিকে ? এক জ্ঞানী বললেন , শব্দটা ইংরেজি পালি নয় অতএব এটা মনে রাখিবে তা বুদ্ধ নিসৃত বাণী নয় । বোকা বললেন শুনেছি , বুদ্ধ পালি নয় মগধি ভাষায় কথা বলতেন। জ্ঞানী বলিলেন তুমি যা শুনেছো ভুল শুনিয়াছো এবং বোকা তা গ্রহন করিলেন । ঊত্তরে আর এক জ্ঞানী বললেন, আমরা ভাগ্যবান, হা তিনি বোকা তবে থেরবাদী বোকা কারন থেরবাদ আর মহাযান বাদীদের সংঘাতের ওটাই, অনেক কারনের মধ্যে একটা কারন ।

আর এক জ্ঞানী বোকাকে বললেন, বিকালা ভোজনা বেরামনি অর্থ হচ্ছে বিকালে আহার করিও না তবে তোমার মন যদি বলে তবে করিলে দোষ বলিয়া গন্য হইবে না । বোকা বলিলেন আমার মন তো এক্ষণ এ বিষয়ে কিছু বলে নাই তবে আপনি যখন জায়েজ করিয়াছেন তবে আমি নিশ্চিন্ত চিত্তে এখন থেকে রাত্রিতে আহার করিতে পারিব । ঊত্তরে আর এক জ্ঞানী বললেন, আমরা ভাগ্যবান, হা তিনি বোকা তবে মহাযানবাদী বোকা কারন থেরবাদ আর মহাযান বাদীদের সংঘাতের ওটাই, অনেক কারনের মধ্যে একটা কারন ।

এ ধরনের বোকা শুধু উল্লেখিত দুটি বাদে নয় অন্যান্য বুদ্ধবাদে ও আছে (বুদ্ধবাদ বলতে যা বুঝিয়েছি তা ছোট্ট করে জানতে পুর্ব্বর্তী লেখা বুদ্ধবাদ পড়তে পারেন ) । সুত্রের অপব্যাখা যে ভাবে হচ্ছে যারা আজ যে কোন সুত্রের আংশিক বিবরন দিয়ে যেমন সুত্রটি সম্পুর্ন উপস্থাপন না করে কিংবা যথাযথ উপস্থাপন না করে, কোন কাল পাত্র ভেদে সুত্রটির অবতারনা হয়েছিল তার উল্লেখ না করে, নিজেদের র্হীন স্বার্থ চরিতার্থে বোকাদের বোকা বানাচ্ছেন (উল্লেখ্য অভিধর্মের রেফারেন্স টেনে বোকা বানানো নাকি তত সহজ নয় ) , যারা অনুধাবন করবেন, যারা করবেন না এবং যারা এ দুটোর কোনটাই নন সকলের প্রতি মংগল কামনা রইলো ।

সম্মন্ধে vuato2

এটা ও দেখতে পারেন

মেডিটেশান এবং আপনার ব্রেইন

Leave a Reply